চুল লম্বা করার তেলের নাম যা সবথেকে বেশি কার্যকরী

  

আপনার আশেপাশের মেয়েদের লম্বা চুল দেখে আপনার কি চুল লম্বা করার খুব ইচ্ছা। আপনিও চান চুল লম্বা করতে এবং চুল লম্বা করার তেলের নাম খুঁজছেন। যদি এমনটা হয় তাহলে এই আর্টিকেল শুধু আপনার জন্য। চুল লম্বা করার তেলের নাম নিয়ে এবং চুল লম্বা হতে কতদিন সময় লাগে এই আর্টিকেলে আলোচনা করেছি। তাই চুল লম্বা করার তেলের নাম এই আর্টিকেল টি পড়ুন।
চুল লম্বা করার তেলের নাম
আশা করছি আমার এই দ্রুত চুল লম্বা করার সেরা উপায় আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা আপনাদের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য পাবেন। তাই আপনার চুল দ্রুত লম্বা করতে এই পুরো আর্টিকেলটি পরুন। আপনার প্রয়োজনীয় সকল তথ্য আর্টিকেলে পাবেন।

ভূমিকা

চুল হচ্ছে মেয়েদের সৌন্দর্যের এক রুপ।অনেকেই এই চুল এর সাহায্যে নিজের নানান রকম রুপ দিয়ে থাকে। কেউ কেউ চুল ছোট রাখতে পচ্ছন্দ করে। আবার কেউ কেউ লম্বা রাখতে চায়। চুল যেমন ই হোক না কেন কিছু কিছু নিয়ম মেনে চললেই আপনি পাবেন ঘন আর লম্বা চুল। তাই আপনাদের অবশ্যই চুল লম্বা করার তেলের নাম সম্পর্কে জানতে হবে। লম্বা ও সুন্দর চুল পেতে নিম্নের নিয়ম গুলো মেনে চলুন।

চুল লম্বা হতে কতদিন সময় লাগে

চুল যখন লম্বা হয় তখন একটা মেয়েকে দেখতে অনেকটা সুন্দর লাগে। আমাদের সকলের লম্বা চুল পাওয়ার ইচ্ছা থাকে অনেক। তাই লম্বা চুল পাওয়ার আগে যানতে হবে চুল লম্বা হতে কত দিন সময় লাগে।কিভাবে চুলের যত্ন নিতে হবে এবং চুল দ্রুত লম্বা করার সেরা উপায় গুলো। আমাদের চুল সাধারনত মাসে ১.২৫ সেন্টিমিটার লম্বা হয়। এটা যদি হিসাব করা যায় তাহলে বছর শেষে দাঁড়ায় ১৫ সেন্টিমিটার অথবা ৬ ইঞ্চি।

চুল লম্বা করার তেলের নাম

আমাদের চুল ছোট আর খুব পাতলা দেখাই এর প্রধান কারন হচ্ছে নতুন ভাবে চুল গজায় না এই কারনে।তাই চুল লম্বা করতে চাইলে প্রথমে আমাদের জানতে হবে কিভাবে নতুন চুল গজাবে।আর নতুন চুল গজানোর জন্য আমাদের কী কী তেল ব্যবহার করতে হবে। আসুন তাহলে জেনে নিই চুল লম্বা করার তেলের নাম তেলের নাম গুলো।

নারকেল তেলঃ নারকেল তেল এর উপকারিতা আমাদের সকলের ই যানা। আমরা সকলেই চুলের যত্নে নারিকেল তেল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু নারিকেল তেল শুধু চুলের যত্নেই নয় নতুন চুল গজাতেও সাহায্যে করে। তাই নতুন চুল গজাতে চাইলে আজ থেকেই নারকেল তেল এর ব্যবহার শুরু করুন।
ভিটামিন ই অয়েলঃ চুলের যত্নে যদি ভিটামিন ব্যবহার করা যাই তাহলে তো আর কোনো কথাই নেই।যদি আপনার ইচ্ছা থাকে আপনার ও চুল হবে ঘন তো ভিটামিন ই অয়েল মাথাই ব্যবহার করা শুরু করুন দেয়া শুরু করুন খুব দ্রুত কাজ করে ভিটামিন ই অয়েল। ভিটামিন ই অয়েল প্রসাধনির দোকান থেকে ক্রয় করতে পারবেন। আর যেভাবে ভিটামিন ই অয়েল ব্যবহার করবেন তা হলো-
  • নারিকেল তেল এর সাথে ভিটামিন ই অয়েল মিশিয়ে মাথাই দিয়ে ভালোভাবে ম্যাসাজ করবেন।
  • কলা ভালো ভাবে চটকে নিয়ে তাতে ৩ টি ভিটামিন ই অয়েল দিন এবং তাতে ১টেবিল মধু ব্যবহার করুন।মাথাই দিয়ে ম্যাসাজ করুন।আর তা ৬০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • ভিটামিন ই অয়েল সরাসরি মাথায় ও ব্যবহার করতে পারবেন।রাতে মাথায় দিয়ে রেখে দিন এবং সকালে ধুয়ে ফেলুন।

ক্যাস্টর অয়েলঃ চুলের যত্নে ভিটামিন এর কোন বিকল্প নেই। আর ক্যাস্টর অয়েল এমন এক ধরনের তেল যাতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন ই ও প্রোটিন রয়েছে। যা আপনার চুল কে করে ঘন লম্বা। এই তেল মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল সচল রাখতে সাহায্য করে। যার ফলে চুলের গোড়ায় ভালোভাবে রক্ত পৌঁছাতে সাহায্যে করে।ফলে মাথায় নতুন চুল গজায়।

ল্যাভেন্ডার অয়েলঃ ল্যাভেন্ডার অয়েল এমন একটি তেল যে তেলে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান রয়েছে । যা আমাদের চুল পরা রোধ করে।ফলে মাথায় নতুন চুল গজায়।

চুল লম্বা করার হেয়ার প্যাক

আপনি কি জানেন চুল দ্রুত লম্বা করার সেরা উপায় গুলো কি কি। যে কোন কিছুর যত যত্ন নিবেন তত ভালো থাকবে।সেইটা চেহারা হোক বা চুল। আর মেয়েরা এই যত্ন নিতে একটু বেসিই এগিয়ে।আমরা আমদের চুলের যত্নে কত কী না করে থাকি। কত রকম তেল ব্যবহার করে থাকি। 

আর মনে মনে ভাবি যে অনেক কিছু করে করেছি। কিন্তু আসলেই কী তাই। আমরা কী আসলেই চুলের সঠিক পরিমানে যত্ন নিই। না শুধু তেল ব্যবহার করলেই হই না। চুলের যত্নে তেল এর পাশাপাশি কিছু হেয়ার প্যাক ও ব্যবহার করতে হয়। চুল লম্বা করার হেয়ার প্যাক গুলো সম্পর্কে আলোচনা করলাম।
ডিম দিয়ে তৈরি প্যাকঃ আমরা সকলেই জানি ডিম এ রয়েছে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন যা সাধারণত আমাদের চুল পড়া রোধ করতে সাহায্যে করে। ডিমের হেয়ার প্যাক বানাতে একটি বাটিতে ১ ডিম তার সাথে ১চামচ অলিভ অয়েল ও ১ চামচ মধু নিয়ে ভালোভাবে মেশাতে হবে। 

অলিভ অয়েল ও মধু চুলের দৈর্ঘ ও পরিমাপ অনুযায়ী বাড়ানো যাবে। প্যাকটি তৈরি হয়ে গেলে চুলের গোড়ায় আলতো ভাবে ম্যাসাজ করতে হবে। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করতে হবে। ভালো ফলাফল পেতে সপ্তাহে অন্তত ১ বার ব্যবহার করুন।

আঁদা দিয়ে হেয়ার প্যাকঃ আঁদা কুচি ২ টেবিল চামচ্র নিই। তার সাথে ৩ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশাতে হবে। অল্প পরিমান লেবুর রস মিশিয়ে নিন। প্যাকটি চুলের গোড়ায় আলতোভাবে ম্যাসাজ করতে হবে। প্যাকটি ৩০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফলের জন্যে সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করতে হবে।

টক দইয়ের হেয়ার প্যাকঃ একটি বাটিতে ১ কাপ টক দই নিই।তারসাথে ২ টেবিল চামচ এলোভেরা জেল মিশায়। এবার দুটোকে ভালোভাবে মেশায়। প্যাকটি পুরো মাথায় আলতোভাবে ম্যাসাজ করতে হবে। প্যাকটি ব্যাবহারের ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করতে হবে।

কলা দিয়ে তৈরি হেয়ার প্যাকঃ কলা এমন একটি উপাদান যা আমাদের চুল বৃদ্ধির জন্যে অনেক কার্যকরি।প্রথমে ২টি কলা ভালোভাবে চটকে নিতে হবে।

তারপর তার সাথে ১ টি ডিম ও ১ চামচ লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এই প্যাকটি পুরো মাথায় ভালোভাবে লাগিয়ে নিতে হবে। এবার একটি প্লাস্টিক দিয়ে মাথা মুড়ে ফেলুন। তার উপর একটা তোয়ালে পেঁচিয়ে রাখুন।এভাবে ১ ঘন্টা রেখে দিন।তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

লম্বা চুলের জন্য পেঁয়াজের রস

আমরা মেয়েরা কম বেশি সবাই এটার সাথে পরিচিত। আমরা সবসময় রান্নার কাজে এইটা ব্যবহার করে থাকি।কিন্তু রান্না ছাড়াও এটা ব্যবহার করা যায় চুলের যত্নে ।চুলের যত্নে পেঁয়াজের তুলনা অতুলনীয়। এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগবে লম্বা চুলের জন্য পেঁয়াজের রস আসলেই কি কার্যকরী। 

পেঁয়াজের রস এর সাথে এলোভেরা জেল মিশিয়ে মাথায় দিয়ে ভালো ভাবে ম্যাসাজ করতে হবে। তা মাথায় রেখে ১ ঘন্টা পর ধুয়ে ফেলতে হবে। এটা চুলের যত্নে এতোটা কার্যকরি কিছু দিনের মধ্যেই আপনার চুল এর পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

চুল লম্বা করার ঘরোয়া সহজ উপায়

আমরা সব সময় যে কোন ক্ষেত্রে ঘরোয়া সহজ উপায় ব্যবহার করতে বেশি পছন্দ করি। চুলের ক্ষেত্রেও তাই। আমরা চুল লম্বা করার ঘরোয়া সহজ উপায় খুঁজি। আমাদের বাসাই আমাদের চোখের সামনে এমন অনেক কিছু আছে যা দিয়ে আমরা ঘড়োয়া উপায় এ আমাদের চুলের যত্ন নিতে পারি। কিন্তু আমরা সেইদিক এ লক্ষ না করে বাইরের পণ্য ব্যবহার এ বেশি সাচ্ছন্দ্য বোধ করি।

আজ আপনাদের সামনে এমন একটা প্যাক এর কথা বলবো যার উপকরন সবসমই আমাদের চোখের সামনেই থাকে। একদম ঘড়োয়া উপায়ে যত্ন নিয়ে করা যাবে চুল সুন্দর আর লম্বা। লম্বা ও মজবুত চুলের জন্য ৩ টি ঘড়োয়া উপাদান হলো;নারিকেল তেল,পেঁয়াজের রস ও কালিজিরা।

তৈরির নিয়মঃ একটি পাএতে ৩চামচ নারিকেল তেল নিই।এবার তাতে ২চামচ কালিজিরা গুঁড়ো করে দিয়ে গরম করে নিই। তারপর একটি বড় বাটিতে গরম পানি নিয়ে তার উপর তেলের বাটিটা বসিয়ে দিতে হবে তাহলে তেলটি গরম হয়ে যাবে।এবার তাতে ২ টেবিল চামচ পেঁয়াজের রস মেশাতে হবে।

ব্যবহারের নিয়মঃচুলগুলো ভাগ ভাগ করে নিতে হবে। তারপর চুলের গোড়ায় তেল আলতোভাবে ৫ থেকে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করতে হবে। ম্যাসাজ করার ৩০ থেকে ৪০ মিনিট পর একটা তোয়ালে গরম পানিতে ভিজিয়ে তার পর তোয়ালে টা পুরো মাথায় ১৫ মিনিট জড়িয়ে রাখতে হবে। এটাকে স্টিম করা বলে যা আমাদের চুলের জন্য খুব বেশি উপকারি।

চুল তাড়াতাড়ি লম্বা করার উপায়

চুল মানেই সুন্দর।সকলেই চায় সুন্দর আর লম্বা চুল। কিন্তু এখন কার জীবন এমন এক পর্যায়ে এসেছে আমাদের কোন এক জায়গায় বেশি সময় দেওয়া সম্ভব হয় না। আমরা চাই অল্প সময় ব্যয় করে বেশি লাভ পেতে। কিন্তু আসলেই কি তা সম্ভব। আমরা যদি কিছু নিয়ম মেনে চলি তাহলে তা সম্ভব।আমাদের চুল এমন তার যত যত্ন নেব তা হবে তত লম্বা আর সুন্দর। তাই চুল তাড়াতাড়ি লম্বা করার উপায় গুলো জেনে আমাদের সেগুলো ব্যবহার করা উচিত। 
আপনি চুল দ্রুত লম্বা করার সেরা উপায় জেনে প্রতিদিন একটু একটু যত্ন নিয়েও আপনার চুল হবে ঘন ও লম্বা করার চেষ্টা করতে পারেন। আমাদের বেঁচে থাকার জন্য যেমন খাদ্য প্রয়োজন তেমন ই চুলের ও খাদ্য প্রয়োজন।আর চুলের খাদ্য হচ্ছে তেল।

তাই চুল এ নিয়মত তেল ব্যবহার করতে হবে।আর শুধু তেল দিলেই হবে না তেল দেওয়ার পর তা ভালোভাবে ম্যাসাজ করতে হবে।কারন ম্যাসাজ করার ফলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়।যা আমাদের চুল এর গোড়া শক্ত করে ফলে চুল পড়া অনেকটা হ্রাস পায়।এ ছাড়াও নিয়মিত শ্যাম্পু করলেই হবে না।

সিলিকন,সালফাইটমুক্ত শ্যম্পু ব্যবহার করতে হবে। আর শ্যাম্পু করার সময় অবশ্যই আলতো ভাবে ঘষতে হবে। বেশি শক্তি দিয়ে ঘষা যাবে না।কারন তাতে আমাদের চুলের খুব বেশি ক্ষতি হয়। আবার আমাদের আর একটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে কখনই চুল গরম পানি দিয়ে পরিষ্কার করা যাবে না। 

আমরা আজকাল চুলের স্টাইল করার জন্য চুলে ইলেক্ট্রনিক মেশিন ব্যবহার করি যা আমাদের চুলের অনেক বেশি ক্ষতি করে। তাই এগুলো ব্যবহার না করাই ভালো।

অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করা

আসলেই কি অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করা যায়? আমাদের সকলের সবসমই এটাই মনে হয় এতো কিছু করছি তাও যেন চুল বাড়ছেই না। চুলের জন্যে আর কি করবো। কিন্তু আসলেই কি যানি যে আমরা যা করি তা কি আসলেই আমাদের চুলের জন্যে ভালো নাকি খারাপ। তাই চুলের যত্ন নেওয়ার আগে অবশ্যই এটা জানতে হবে আসলেই আমাদের চুলের কি প্রয়োজন। আমাদের চুলের আসল সমস্যা টা কি।তার পর নিতে হবে চুলের যত্ন।

১। চুলের যত্নের জন্যে আপনার কাচির সাথে বন্ধুত্ব করতে হবে। এবার মনে হবে কেন।কারন আমাদের চুল এর আগা খুব অল্পতেই ফেটে যাই।যেটা আমাদের চুল বাড়তে বাধা দেয়। তাই অবশ্যই চুলের আগা ফাটলে তা কেটে ফেলতে হবে।

২। আমরা অনেকেই আছি যারা নিয়মিত শ্যম্পু তো করি কিন্তু কন্ডিশনার ব্যবহার করা প্রয়োজন মনে করি না। কিন্তু এটা একেবারে ভুল ধারনা। আমাদের অবশ্যই শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার ব্যাবহার করা উচিত।কিন্তু অবশ্যই নিজের চুল এর ধরন অনুযায়ি কন্ডিশনার ব্যাবহার করতে হবে।।

৩। আমাদের চুল দ্রুত লম্বা করতে চাইলে নিয়মিত প্রাকৃতিক উপাদান ব্যাবহার করতে হবে। এখন অনেক প্রাকৃতিক উপাদান ক্রয় করতে পাওয়া যায়। যেমন বিভিন্ন ধরনের তেল,ভিটামিন ই ক্যাপ্সুল,এলোভেরা এগুলো চুল বৃদ্ধির জন্যে অনেক কার্যকরি।

৪। চুলের বৃদ্ধিতে অনেক বেশি সাহায্যে করে বিভিন্ন রকম হেয়ার প্যাক। তাই চুলের অল্প সময়ে বৃদ্ধির জন্যে বিভিন্ন রকম হেয়ার প্যাক ব্যবহার করতে হবে।

 শেষ কথা

আমরা সকলেই চাই আমাদের চুল লম্বা ও মজবুত হবে। কিন্তু চুল লম্বা মানেই যে সুন্দর তা কিন্তু নয়। চুল যেমন ই হোক না কেন ছোট বা বড় যত্ন নিলেই চুল সুন্দর। তাই আমাদের চুল যেমন ই হোক না কেন আমাদের সবসমই চুলের যত্ন নেওয়া উচিত। 

আশা করি আমাদের চুল লম্বা করার তেলের নাম এই আর্টিকেলের মাধ্যমে উপকৃত হবেন। এতক্ষণ আমাদের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। চুল লম্বা করার বিষয়ে যদি আপনাদের কিছু জানার থাকে তাহলে আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। আমরা আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

দ্যা বর্ষা ওয়েব সাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url